Wednesday, August 23, 2017
Banner Top
টানটান উত্তেজনার মধ্যে সম্পন্ন হল আটলান্টিক সিটি আলহেরা মসজিদের জুমার নামাজ
Banner Content

আটলান্টিক সিটি থেকে এবিএম নিউজ: যুক্তরাষ্ট্রের অন্যতম বৃহত্তম ইসলামিক সংগঠন মুনার আটলান্টিক সিটির দুইটি গ্রূফের দ্বন্দকে কেন্দ্র করে গত দুই সপ্তাহ ধরে চলছে ক্ষমতার মহড়া । আটলান্টিক সিটির আলহেরা মসজিদের নামাজ পড়তে আসা শত শত মুসল্লী শংকার মধ্যে দিয়ে তাদের নামাজ আদায় করেছেন। সবার মাঝে শংকা দুই গ্রুফের দ্বন্ধের কারনে কখন মারামারি শুরু হবে। কখন বন্ধ হয়ে যায় মসজিদ। সারাক্ষন বিরাজ করছে টানটান উত্তেজনা।উত্তেজনার মূল বিষয় হচ্ছে আটলান্টিক সিটির আলহেরা মসজিদের ট্রাষ্ঠি বোর্ড এবং মসজিদ কমিটি গঠন নিয়ে । পূর্ববর্তী ট্রাষ্টি বোর্ডের সদস্য সংখ্যা ছিল ১৫ জন যাদের মধ্যে ১৫ জনই হচ্ছেন মুসলিম উম্মাহ্ অব নর্থ আমেরিকার স্থানীয় এবং বিভিন্ন ষ্টেটের নেতৃবৃন্দ।মসজিদ প্রতিষ্ঠার প্রথম পর্যায়ে মসজিদের প্রতিষ্ঠাতা ইকবাল এবং রহিম স্থানীয় মুসলানদেরকে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন মসজিদের ট্রাষ্টি বোর্ড, পরিচালনা কমিটি এবং উপদেষ্ঠা কমিটিতে স্থানীয় মুসলানদেরকে অন্তভুক্ত করার। যা গত ৮ বছরে করেনি অথবা করতে পারনেনি। অবশেষে গত ২০১৫ সালে কমিটিতে স্থানীয় মুসলানদেরকে অন্তভুক্ত করার চেষ্ঠাও মুনার কেন্দ্রীয় এবং স্থানীয় নেতৃবৃন্দের বাধার মুখে ব্যাহত হয়।এরই মধ্যে দুইবছর অতিক্রান্ত হয় এবং ট্রাষ্টিবোর্ডের মেয়াদ উর্ত্তীন হয়। যার ফল শ্রুতিতে গত ১৫ই জুলাই নতুন ট্রাষ্টি বোর্ড, পরিচালনা কমিটি এবং উপদেষ্ঠা কমিটি গঠনের জন্য আলহেরা মসজিদে বিবাদমান দুইটি গ্রূফের সভার আয়োজন করা হয়েছিল। সভায় মুনার কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের উপস্থিতিতে ধাওয়া পাল্টা দাওয়ার মধ্যে দিয়ে মুনার কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ আব্দুর রহিমের নেতৃত্বাধীন পূর্ববর্তী কমিটি বাতিল ঘোষনা করে মুনার সমর্থনপুষ্ঠ জসিম উদ্দিনের নেতৃত্বে আরেকটি কমিটি ঘোষনার চেষ্টা করলে হট্রগোলের মধ্যে তা ব্যহত হয়। মুনার আর্শীবাদপুষ্ঠ কমিটি ঘোষনা করতে না দেওয়ায় উত্তেজনা চরম আকার ধারন করে এবং স্থানীয় পুলিশ এসে সকল মুসল্লী এবং বিবাদমান গ্রূফকে মসজিদ থেকে বের করে দেয়। ঐদিন থেকে স্থানীয় পুলিশ পাহারায় আটলান্টিক সিটির আলহেরা মসজিদের মুসল্লীগন নামাজ আদায় করছেন।স্থানীয় সাংবাদিকবৃন্দ পেইজ বুকে লাইভ দিয়ে বিবাদমান দুইটি গ্রূফের দ্বন্ধের কারন এবং মসজিদের মধ্যে তাদের অসংযত আচরনের চিত্র সকলের কাছে তুলে ধরেছেন। অসংযত আচরনের চিত্র সমাজের কাছে তুলে ধরায় সাংবাদিকবৃন্দ নন্দিত এবং নিন্দিত হয়েছেন। মুনা এবং স্থানীয় বিএনপির সমর্থন পুষ্ঠ কিছু নেতাকর্মী অবস্থান নিয়েছেন মুনার নতুন কমিটির পক্ষে এবং বিভিন্ন সামাজিক রাজনৈতিক এবং স্থানীয় সাংবাদিকবৃন্দ অবস্থান নিয়েছেন সংস্কারপন্থী মসজিদ কমিটির বর্তমান সভাপতি আব্দুর রহিমের পক্ষে ।তাই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম পেইজ বুকের লাইভ মুনা এবং স্থানীয় বিএনপির সমর্থন পুষ্ঠ কিছু নেতাকর্মীর কাছে নিন্দিত হলেও মসজিদের সাথে সংশ্লিষ্ঠ সকলের কাছে নন্দিত হয়েছে। যদিওবা মসজিদের খতিব মুনার কেন্দ্রীয় কমিটির এডুকেশন ডাইরেক্টর ডঃ রুহুল আমিন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম পেইজ বুকের লাইভ অনুষ্ঠানের ব্যাপারে বিভিন্নভাবে অপ-প্রচারনা চালিয়ে যাচ্ছেন। মসজিদকে ঘিরে মুনার স্থানীয় এবং কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের সংঘাতের বাস্তব চিত্র ফুটে উঠুক তা মুনার এডুকেশন ডাইরেক্টর হিসাবে কোনমতেই কাম্য ছিলনা তার কাছে। যদিওবা সামাজিক সচেতনা বৃদ্ধিই ছিল সাংবাদিকদের মুল উদ্দেশ্য। ইতিমধ্যে দুইটি গ্রূফ দল ভারী করার লক্ষে বিভিন্ন সভার আয়োজন করলেও ট্রাষ্টিবোর্ড এবং কমিটি গঠনের ক্ষেত্রে কোন সুরাহা না করতে না পারায় মুনার পক্ষ থেকে মুনার আবদুর রহিমের নেতৃত্বাধীন স্থানীয় কয়েকজন নেতৃবৃন্দের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। যার শুনানী হবে আগামী ১৩ই আগষ্ঠ । শুনানীর দিন ধার্য করা হলে মসজিদের দখল নিয়ে বাকবিতন্ডা চলছে প্রতিদিন।বাকবিতন্ডার কারনে মসজিদের বিতরে এবং বাহিরে টানটান উত্তেজনার পরিপ্রক্ষিতে গত ২১ই জুলাই শুক্রবার নামাজ শেষে স্থানীয় পুলিশ প্রশাসন বিবাদমান দুইটি গ্রূফকে কোন বক্তব্য বা সভা না করার নির্দেশ দেন।স্থানীয় মুসল্লীগন মুনার শাসন দেখতে চায়না। মুসল্লীরা চায় ট্রাষ্টি বোর্ড, পরিচালনা কমিটি এবং উপদেষ্ঠা কমিটিতে স্থানীয় জনসাধারনের অন্তভুক্তি।তাই অনতি বিলম্বে আলহেরা মসজিদ মুনার ছোবলমুক্ত হবে এটাই সকলের প্রত্যাশা।

0 Comments

Leave a Comment

সব খবর (সব প্রকাশিত)