Saturday, September 23, 2017
Banner Top
Banner Content

তথ্যপ্রযুক্তি আইনের ৫৭ ধারায় মামলা গ্রহণের ক্ষেত্রে পুলিশ সদর দফতরের পরামর্শ নিতে হবে বলে জানিয়েছেন পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) এ কে এম শহিদুল হক। বুধবার পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের এক বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।
সম্প্রতি সংবাদ প্রকাশ ও সামাজিক মাধ্যমে মন্তব্য প্রকাশের জের ধরে ৫৭ ধারায় দায়ের করা মামলায় নির্বিচারে গ্রেফতারের ঘটনা নিয়ে ব্যাপক বিতর্ক দেখা দেয়।

এ কে এম শহিদুল হক

অভিযোগ উঠে, ৫৭ ধারা অপব্যবহার করে নিরপরাধ ব্যক্তি, বিশেষ করে সাংবাদিকদের হয়রানি করা হচ্ছে। এর প্রেক্ষিতে ৫৭ ধারা বাতিলের দাবিতে বাংলাদেশে ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন, ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিসহ সারাদেশে সাংবাদিকরা আন্দোলন শুরু করেন।
এদিকে সমালোচনার প্রেক্ষিতে গত ৯ জুলাই আইনমন্ত্রী আনিসুল হক জানান, ৫৭ ধারার মামলায় কেউ যাতে হয়রানির শিকার না হয়, সে বিষয়ে তদন্তকারী সংস্থাগুলোকে নির্দেশ দেয়া হবে।
তবে ৫৭ ধারা বাতিল না হওয়া পর্যন্ত এই ধারায় মামলা হবে বলেও জানিয়েছিলেন মন্ত্রী। কিন্তু এ ঘটনার পর ৫৭ ধারায় একাধিক সাংবাদিকের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়।
এর মধ্যে সর্বশেষ সোমবার রাতে খুলনায় ছাগলের মৃত্যুর ঘটনায় প্রকাশিত সংবাদ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে শেয়ার করায় লতিফ নামে এক সাংবাদিককে ৫৭ ধারার মামলায় গ্রেফতার করা হয়।
মামলার এজাহারে বলা হয়, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী নারায়ন চন্দ্র চন্দের বিতরণ করা ছাগল মারা যাওয়া সংক্রান্ত খবর ছবিসহ ফেসবুকে শেয়ার দিয়ে আপত্তিকর মন্তব্য করে তার মানহানি করেছেন সাংবাদিক আবদুল লতিফ।
এ ঘটনা নিয়ে দেশ-বিদেশে তীব্র সমালোচনার সৃষ্টি হলে বুধবার আদালত লতিফকে জামিন দেন আদালত। পরে কারামুক্ত হন তিনি।
একই দিন আইজিপি ৫৭ ধারায় মামলা গ্রহণের ক্ষেত্রে পুলিশ সদর দফতরের পরামর্শ নেয়ার কথা বললেন।

0 Comments

Leave a Comment

সব খবর (সব প্রকাশিত)