Wednesday, August 23, 2017
Banner Top
Banner Content

ইউএসএনিউজঅনলাইন.কম : নিউইয়র্কে ব্রঙ্কসে বাংলাদেশী কমিউনিটির প্রিয়মুখ, জালালাবাদ এসোসিয়েশনের সাবেক সহ সভাপতি, বিশিষ্ট সমাজ কর্মী প্রবীণ প্রবাসী আবদুল বাছির খান গুরুতর অসুস্থ। গত প্রায় এক মাস ধরে তিনি বার্ধক্যজনিত নানান জটিলতায় ভূগছেন। জটিল দুরারোগ্য ব্যাধিতে আক্রান্ত হয়ে ব্রঙ্কসের জ্যাকবি ও মান্ট্রিফিউর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকার পর বর্তমানে বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের তত্ত্বাবধানে পার্কচেষ্টারের বাসায় বিশ্রামে রয়েছেন। বিভিন্ন পরীক্ষা নিরীক্ষার জন্য তাকে নিয়মিত যেতে হচ্ছে হাসপাতালে। তিনি তার আশু আরোগ্যের জন্য দেশ-প্রবাসের সকলের দোয়া কামনা করেছেন।

বাছির খান

বাছির খানের অসুস্থতার খবর জানতে পেরে প্রতিদিন বিপুল সংখ্যক প্রবাসী তাকে দেখার জন্য ছুটে যাচ্ছেন তার বাস ভবনে। ডাক্তাদের বারন থাকায় কষ্ট করে বাসায় না গিয়ে তার জন্য দোয়া করার জন্য সবাইকে তিনি বিনীত অনুরোধ জানিয়েছেন।
আব্দুল বাছির খান জানান, মাত্র ১২ বছর বয়সে তিনি বাবার হাত ধরে পাড়ি জমান বিলেতে। দীর্ঘ এক যুগের বেশী সময় ব্রিটেনে বসবাসের পর বৃটিশ পাসপোর্ট নিয়ে বাছির খান যুক্তরাষ্ট্রে আসেন। এখানে আসার পর নিউইয়র্কেই কেটেছে তার প্রবাস জীবনের ৫৫ বছর। গ্রহণ করেছেন আমেরিকান পাসপোর্ট। তবে কখনো পাকিস্তান কিংবা বাংলাদেশের পাসপোর্ট ছিল না তার। বাংলাদেশের হবিগঞ্জ জেলার নবীগঞ্জের বাসিন্দা আব্দুল বাছির খানের স্ত্রী, এক ছেলে ও এক মেয়ে। সকলে যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিক। প্রবীণ প্রবাসী বাছির খান একাধারে ব্রিটেন ও যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিক।
ব্রিটেন ও যুক্তরাষ্ট্রের দীর্ঘ জীবনে তিনি সবসময় বাংলাদেশী বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠনের সাথে যুক্ত ছিলেন এবং এখনো রয়েছেন। ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় বিচারপতি আবু সাঈদ চৌধুরীর সাথে মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষে লন্ডনের বিভিন্ন স্থানে বিক্ষোভেও অংশ গ্রহণ করেন তিনি। ম্যানচেষ্টার আওয়ামী লীগের কর্মী হিসেবে রাজপথে মিছিল করেছেন, সক্রিয়ভাবে অংশ নিয়েছেন বিভিন্ন সমাবেশে। যুক্তরাষ্ট্রে আসার পর থেকে বাংলাদেশের স্বপক্ষে কিংবা কমিউনিটির বিভিন্ন দাবি-দাওয়া আদায়ে মিছিল-মিটিং-সামাজিক কর্মকান্ডে স্বোচ্চার রয়েছেন তিনি। প্রবাসী বাংলাদেশেীদের কোন অনুষ্ঠানের খবর পেলেই ছুটে যান সেখানে। বিরূপ আবহাওয়াতেও প্রবাসের বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক-রাজনীতিক অনুষ্ঠানের প্রথম কাতারে আসন নেন তিনি। প্রবাসের অনেক সংগঠনেরই প্রতিষ্ঠাতাদের একজন বাছির খান। কোন কোন সংগঠনের সাথে রয়েছেন বহু বছর ধরে।
সংগঠন প্রিয় আবদুল বাছির খান যুক্তরাষ্ট্র হবিগঞ্জ সমিতির সাথে যুক্ত সেই প্রতিষ্ঠা থেকেই। প্রবাসের অন্যতম বৃহত্তম আঞ্চলিক সংগঠন জালালাবাদ এসোসিয়েশনের তিনি ছিলেন সহ-সভাপতি। যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী নবীগঞ্জবাসীর একমাত্র সংগঠন নবীগঞ্জ উপজেলা ওয়েলফেয়ার সোসাইটি ইউএসএ’র কাযর্করি কমিটিতে রয়েছেন ১৯৯৬ সাল থেকে। তাছাড়া বাংলাদেশ সোসাইটি অব ব্রঙ্কসের তিনি প্রতিষ্ঠাতা সদস্য। ব্রঙ্কস বাংলা স্কুলের শিক্ষকতার সাথে জড়িত ছিলেন দীর্ঘ দিন। ব্রঙ্কসের কলম্বাস খ্যাত বাছির খান ১৯৯৬ সালে অবসর গ্রহনের পর থেকে এখনও বসবাস করছেন ব্রঙ্কসের পার্কচেষ্টারে। তিনি পার্কচেষ্টারে বিভিন্ন রেষ্টুরেন্টের নিত্যদিনের সন্ধ্যার আড্ডায় মধ্যমনি। দলমত নির্বিশেষে সবাই ভালবাসেন অজাতশত্রু সদা হাস্যোজ্জ্বল আব্দুল বাছির খানকে। ব্রঙ্কসের সবার ‘নানা’ তিনি। প্রায় ৬০ বছর ধরে বিদেশী পাসপোর্ট বহন করলেও প্রবীণ এ প্রবাসী বুকের ভিতর লালন করেন মাতৃভূমি বাংলাদেশ।

0 Comments

Leave a Comment

সব খবর (সব প্রকাশিত)